ব্যাথাময় মানব জনম

কতদিন হয়নি ঘুমানো নিশ্চিন্ত মনে ,
মনের কোনে ব্যাথার রেখা রয়েছে ছড়িয়ে ।
কতদিন ভাবনাগুলো হয়নি প্রাশান্ত ,
সপ্নগুলো হারিয়ে ফেলার কান্না রয়েছে জড়িয়ে ।

কতদিন বলো এই চোখগুলো তাকিয়ে থাকে দূরে –
শুষ্ক হয়ে গেছে বহু আগেই ,
ঠিক হৃদয়ের মত ।
কতকাল ধরে যে ঝিম ধরে পড়ে আছে কোন কোনে ,
একটুও শব্দ করে না ,
আগের মত আর স্পন্দিত হয়না , কিন্তু আগে
উচ্ছাস ছিল যে কত !

আহারে জীবন , ব্যাথাময় মানব জনম ।

– arifhasnat/dhaka/17.3.2018

গতিপথ

যে গতিপথ প্রভূর দেওয়া ,
হোক না তেমন যেমন তিনি চান ।
যে পৃথিবী দেয়নি কিছুই ,
শুধুই তারে দিলাম মনো-প্রান ।

যে গানে সব কান্না আসে ,
অন্তরেতে বাড়ায় দুখের বান ।
তপ্ত রোদে এমনি করে ,
কত ব্যাথায় নির্মিত বিরান ।

হারিয়ে ফেলা ভাষা

আগে মনে শান্তি ছিল
মুখে সদা হাসি ছিল
আরো কাব্যকথা।

এখন বুকে বেদনা অনেক
চোখের কোনেও জ্বলও খানিক,
আরো ছিন্ন ব্যাথা।

আগে একটা ডায়েরি ছিল,
পাতায় পাতায় ছড়া ছিল,
আরো দিপ্ত আশা ।

ডায়েরিটা আর পায়না খুজে
গুমট কথা চোখটা বুজে,
হারিয়ে ফেলা ভাষা ।

সেই থেকে আজ-অদ্যবধী,
ছন্দগুলো খুজে ফিরি,
হারিয়ে যাওয়ার ভিরে ।

প্রানান্তর এই চেষ্টা আমার
সপ্নগুলো কুড়িয়ে পাবার,
ভিড়তে নতুন তীরে।

[আরিফ হাসনাত
ফাস্ট-এইড,
৫,৪,২০১৫—11.45 am

হয়ত মনে রাখবে না কেউ

হয়ত মনে রাখবে না কেউ
যখন আমি থাকব না ,
কথাগুলো ঠিকি রবে
শুধুই আমি জাগব না ।

কিন্তু জানি সবার কথা
পড়বে মনে খুব করে্‌
হঠাৎ করে জেগে ঊঠা
মিষ্টি আজান ঐ ভোরে ।

আলতো করে পা বাড়িয়ে
ফেলে আসা দিনগুলো ,
কিংবা খুবি কষ্ট পেয়ে
চক্ষু বেয়ে জ্বল্গুলো ।

চাওয়া

কোলাহল আমার ভালো লাগেনি কখনো,
জন-মানবহীন দিগন্ত জুরা খোলা প্রান্তে হেটে যেতে যেতে আমি আমার প্রভুর বিশালত্ব ঘোষনা করব ।
দৃষ্টির প্রতিটি প্রান্তে যে প্রভুর মহিমা ,
আমি তা দেখে সিজদায় অবনত হব ।

হয়ত খানিকটা সময় বসে জীবনের সব গুনাহ,র জন্য বিনিত হয়ে
আমার রবের নিকট আমি অশ্রু সিক্ত হয়ে ক্ষমা চেয়ে নিব ।

হয়ত আরো কাছাকাছি আসার তিব্র আকাঙ্ক্ষা নিয়েই
আকাশ প্রান্তে চেয়ে চেয়ে চলে যাব আরো অনেক দূর ।

যেখানে নির্জনতা , যেখানে আমি , যেখানে আপনি
আমিতো যেতেই চাইব সেখানে বারে বার
অনেক কথা বলার বাকি র‍য়ে গেছে যে এখনো হে দয়াময় অপার ।

 

june,25,2017/dhaka

অবাক করা সাঁঝে

ফাগুন মাসের মিষ্টি হাওয়া উদাস করে দেয় ,
আলতো বাতাস কেমন যেন বার্তা বয়ে যায় ।

হঠাৎ করে অতীত যেন শুধুই মনে পড়ে ,
আমের মুকুল ভাবনা জাগায় কেন এমন করে !

এইতো সেদিন জীবন ছিল শুধুই চিন্তা ধারা
খেলার মাঝে কাটত দুপুর ,ছিলাম বাধন হারা ।

মাগরিবের ঐ আজান শুনে কাটত তবে বেলা
কেমন করে শেষ হল সব এত হাসির মেলা ।

আবার আমি ফিরে যাব আমার আপন মাঝে
মাদুর পেতে জ্যোৎস্না মাঝে অবাক করা সাঁঝে ।

[ARIF HASNAT – 12.2.17 / 12.43 AM ]

কে বলো কে

কে বলো কে , কে দিয়েছে ভাষা !
কে দিয়েছে সহজ করে বলতে মনে আশা ।

কে দিয়েছে এমন করে মিষ্টি সুরে গাইতে ,
অশ্রু নিয়ে করুন করে প্রভূর কাছে চাইতে ।

কে দিয়েছে শিশুর মুখে আলতো কথা বলা ,
কে দিয়েছে নদীর ঢেঊয়ের ছলাৎ ছলাৎ চলা ।

কে দিয়েছে কিশোর মনে নতুন স্বপ্ন দেখতে ,
দৃষ্টি জুড়ে কল্পলোকে নতুন ছড়া লিখতে ।

কে দিয়েছে জীবন জুড়ে না চাইতে সব,
আল্লাহ তা’য়ালা ,মহান তিনি ,যিনি তোমার রব ।

[arif hasnat/dhaka-21.2.2016]

এভাবে প্রতিদিন একটু একটু করে

এভাবে প্রতিদিন একটু একটু করে
শেষ আশা নিয়ে ফিরে নীড়ে ,
কেটে যায় দিনসব কল্পনালোক ঘিড়ে।

এভাবে প্রতিদিন একটু একটু করে 
অনেক ব্যাথা নিয়ে শীতলতায় ধারে,
ঘাটে ভিড়ে তরি স্বপ্নভূমির তীরে ।

এভাবে প্রতিদিন একটু একটু করে ,
কতদিন চলে যায় অজানাকে ভেবে ,
শুধু সেদিনের সূর্য্য দেখবে বলে।

–২৯/১/১৬–

শুধু একটি বুলেট বাকি

শুধু একটি বুলেট বাকি ,
সপ্ন জয়ের পথে – অনেক আশা বুকে,
শুধু একটি বুলেট বাকি ।

দিগন্ত পথ ধরে -অনন্ত পথ চলি ,
দূর সীমানার পানে – মেলে থাকি আখিঁ ,
শুধু একটি বুলেট বাকি ।

তপ্ত মরুর বুকে – শক্ত কদম ফেলি ,
অনেক বাধা তবু- সাহস বুকে রাখি ,
শুধু একটি বুলেট বাকি ।

[arifhasnat/dhaka –january ,17-2016]

হৃদয় অনুভূতি

প্রতিদিনই আকাশ দেখি , তারার খেলা সাথে ।
শীতল সকাল প্রায়ই দেখি , নিরব শুভ্র প্রাতে ।
 
আগের মত হয়না দেখি হৃদয় অনুভূতি ,
অজান্তেই ছিন্ন কবে কোমলতার সুতি ।
 
আজো আমি হাসি রোজই , অবাক হয়ে দেখি ,
চোখগুলো আর দেয়না ঝলক – ঠুনকো ওরা মেকি ।
 
অনেক দিনই গেছে হয়ে জানি জীবন থেকে পার
মাদুর পেতে বাদুর গোনা নাড়া দেবে না আর
 
জানি সবই , সন্ধা হলেই ঘরে আর ফিরবোনা ,
লোডশিডিংয়ে রাত দুপুরে পথে আর হাটবোনা ।
arifhasnat

february/21-2018

dhaka